স্বাস্থ্য টিপস বিডি https://www.shastotipsbd.com/2022/04/chul-ghono-korar-upay.html

পাতলা চুল ঘন করার ৭টি কার্যকরী উপায় | চুল ঘন করার উপায়

চুল ঘন করার উপায়-চুল পাতলা হয়ে যাওয়া একটি খুব স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। কিন্তু এটা সবার জন্য খুবই বেদনাদায়ক। অস্বাস্থ্যকর জীবনযাপন, পুষ্টির ঘাটতি, অ্যালার্জি, হরমোনের ভারসাম্যহীনতা, দুর্বল চুলের যত্ন এবং জেনেটিক কারণে চুল পড়ে যেতে পারে। চুল পড়া কমাতে এবং পাতলা চুল ঘন করতে ৭ টি উপাদান ব্যবহার করতে পারেন। এগুলি সর্বদা হাতে থাকে তাই আপনি যখনই চান ব্যবহার করতে পারেন। তো চলুন দেখে নেওয়া যাক এমন ৭টি প্রাকৃতিক উপাদান যা পাতলা চুল ঘন করতে খুবই কার্যকরী।

পাতলা চুল ঘন করার ৭টি কার্যকরী উপায়!| চুল ঘন করার উপায়
পাতলা চুল ঘন করার ৭টি কার্যকরী উপায় | চুল ঘন করার উপায়

কেন চুল পড়ে? পাতলা চুল ঘন করার উপায়

গত কয়েক দশকেও চুল পড়াটা একটা স্বাভাবিক বিষয় ছিলো। বলা হয়ে থাকে, আমাদের চুল ১১১০(এক হাজার একশত দশ) দিন প্রায় ৩ বছর বাঁচে এরপর মারা যায়। আমাদের প্রতিদিন গড়ে ১৬০ টি চুল গজায় বিপরীতে ১০০-১৫০ টি চুল পড়ে যায়। কিন্তু চলতি দশকে অস্বাভাবিক হারে চুল পড়া শুরু হয়েছে, এটি একটি নিত্য নৈমত্ত্বিক ঘটনায় পরিণত হয়েছে, যা আমাদের সবার জন্য দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাড়িয়েছে। কিন্তু এর কারণ কী? আসুন জেনে নেই কি কারনে একবিংশ শতকে এসে আমাদের চুল হারাতে হচ্ছেঃ 


১: অ্যান্ড্রোজেনেটিক বা বংশগতঃ বংশগত সমস্যার কারণে ছেলেদের চুল পড়ার বাতিক রয়েছে। তবে এই বিষয়ে মানুষ অনেককাল পর্যন্ত অজ্ঞ ছিলো। আমরা এই বিষয়টি জানতে পারি চিকিৎসা বিজ্ঞানের সাহায্যে। এর থেকেও বেশি আশ্চর্যের বিষয়টি হচ্ছে গত বিশ (২০) বছর আগেও মেয়েদের মধ্যে চুল পড়ার অ্যান্ড্রোজেনেটিক বা বংশগত সমস্যাটি দেখা যেত না, কিন্তু ইদানীং মেয়েদের মধ্যেও এই সমস্যাটি বেড়ে যাচ্ছে।


২: অপ্রয়োজনীয় খাদ্যাভ্যাসঃ অতিরিক্ত চুল পড়া তখন ঘটে যখন কায়িক পরিশ্রম না করা ও অতিরিক্ত মাত্রায় চর্বি এবং সুগার জাতীয় খাবার গ্রহন করা, এইগুলোর কারণে মাথার ত্বক পুষ্টি হারায় বিপরীতে পর্যাপ্ত পরিমাণ সঠিক পুষ্টি উৎপাদন করতে ব্যহত হয়।


৩: রাসয়নিক ব্যবহারঃ বর্তমানে বাজারে প্রচুর পরিমাণে ক্ষতিকারক রাসায়নিক দ্রব্য পাওয়া যায় যা ব্যবহারে মাথার ত্বকের ক্ষতি হয়ে যায়। ঘন ঘন শ্যাম্পু ব্যবহার করলে চুলের প্রোটিন ভেঙে যায় তাই চুল পড়া বেড়ে যায়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ছেলেরা হেয়ার জেল, স্প্রে ইত্যাদি ব্যবহার করে চুলের ক্ষতি করে। আবার ক্লোরিনযুক্ত পানি দিয়ে চুল পরিষ্কার করলেও চুল পড়ার পরিমাণ বেড়ে যেতে পারব। 


৪: ধুমপানঃ অতিরিক্ত ধুমপানের কারণে চুল পড়ার পরিমাণ বেড়ে যেতে পারে। কারণ চুলের পুষ্টিগুন আসে রক্তের মাধ্যমে। চুলের গোড়ায় সূক্ষ্ম রক্তনালী থাকে যা ধূমপান করলে বন্ধ হয়ে যায়, ফলে চুল পড়া বেড়ে যায়।


উপরোক্ত কারণগুলি ছাড়াও আরও বিভিন্ন কারণ রয়েছে, তবে বর্তমানে চুল পড়ার প্রধান কারণ হিসাবে বর্ণিত কারণগুলিকে প্রধান হিসাবে বিবেচনা করা হয়। 


পাতলা চুল ঘন করার ৭টি উপায়

১. অ্যালোভেরা বা ঘৃতকুমারী : চুল ঘন করার উপায়

পাতলা চুলকে ঘন করার জন্য অ্যালোভেরা একটি কার্যকরী উপাদান হিসেবে কাজ করে। প্রথমে একটি অ্যালোভেরা পাতা থেকে চামচ অথবা ছুড়ির সাহায্যে এর জেলটি বাহির করে নিতে হবে। এই জেলগুলোকে মসৃণভাবে পেস্ট করে নিতে হবে। এরপর মাথার স্ক্যাপ্ল-এ ভালো ভাবে ১৫-২০ মিনিট ঘষে ঘষে লাগিয়ে রাখুন। তারপর নরমাল পানি দিয়ে চুলগুলো ধুয়ে ফেলুন। এভাবে প্রতি সপ্তাহে ২- বার ব্যবহার করলে ভালো ফলাফল পাবেন। অ্যালোভেরা স্ক্যাপ্ল-এর মৃত কোষ মেরামত করতে সাহায্য করে এবং চুলের গোড়া মজবুত করে এবং চুল বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। অ্যালোভেরা পাতা না পেলে বাজার থেকে অ্যালোভেরার জেল কিনে নিতে পারবেন।

২. ডিম : চুল ঘন করার উপায়

প্রথমে একটি বাটিতে ডিম ভেঙে নিন। এরপর এটির সাথে যোগ করুন ১ টেবিল-চামচ অলিভ অয়েল। এই দুটি উপকরণ ভালোভাবে মিশিয়ে চুলের গোড়া থেকে আগা পর্যন্ত ভালোভাবে লাগয়ে নিন। এবার একটি কাপড় দিয়ে চুল গুলো ঢেকে রাখুন ৪০ মিনিটের জন্য। এরপর শ্যাম্পু করে কন্ডিশনার দিয়ে ভালো ভাবে চুল ধুয়ে ফেলুন। প্যাকটি সপ্তাহে ২-৩ বার ব্যবহার করুন। 

৩. আমলকী : চুল ঘন করার উপায়

আমলকীর গুঁড়োর সাথে ১ টেবিল চামচ লেবুর রস মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন।  আপনি চাইলে টক দই মিশিয়ে নিতে পারেন এতে করে চুলের জন্য আরো বেনিফিসিয়াল হবে। আপনার চুল যদি রুক্ষ এবং শুষ্ক হয় তাহলে এর সাথে মধুও ব্যবহার করতে পারেন। ভালোভাবে সব গুলো মিশিয়ে মিশ্রন তৈরি করুন, এরপর চুলে লাগিয়ে ৩০ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর শ্যাম্পু করে নরমাল পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ১-২ দিন ব্যবহার করলে ভালো  ফলাফল পাবন।

৪. মেথি : চুল ঘন করার উপায়

মেথি ব্যবহার করে চুল ঘন করা যায়। ভাবছেন কিভাবে? এক কাপ পরিমান মেথি সারারাত পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। পরের দিন ভিজিয়ে রাখা মেথি গুলো পরিষ্কার করে ব্লেন্ডার দিয়ে মসৃণভাবে ব্লেন্ড করে পেস্ট তৈরি করে নিন। তৈরি করা পেস্টটি চুলে লাগিয়ে ৩০-৪০ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর শ্যাম্পু এবং কন্ডিশনার দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন।

৫. মেহেদি : চুল ঘন করার উপায়

মেহেদি পাতা দিয়েও চুল করা যায়। মেহেদি পাতা অল্প পানি দিয়ে বেটে নিন। এর সাথে নারকেল তেল বা অলিভ অয়েল মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করতে পারেন। এবার তৈরি করা পেস্টটি চুলে লাগিয়ে ৩০-৪০ মিনিট অপেক্ষা করুন। অবশ্যই আপনার মাথা একটি কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখুন।  তারপর শ্যাম্পু ও কন্ডিশনার দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। প্যাকটি মাসে ২/৩ বার ব্যবহার করতে পারেন। এখন মার্কেটে মেহেদি কিনতে পাওয়া যায়, তাই মেহেদি পাতা বাটাবাটির ঝামেলা থেকে বাঁচতে সেটাও ব্যবহার করতে পারেন।

৬.  আলুর রসের ব্যবহার : চুল ঘন করার উপায়

i. চুলের গোড়ায় আলুর রস ব্যবহার করলে ভালো ফলাফল পাওয়া যায়।  আলুর রস চুলের মধ্যে মালিশ করতে থাকুন। এরপর ৩০ মিনিট অপেক্ষা করে নরমাল পানি এবং অল্প পরিমাণ শ্যাম্পু ব্যবহার করে ধুয়ে ফেলুন। 

ii. আলুর রসের সাথে পেঁয়াজের রস একসাথে মিশিয়ে নিন। এরপর মিশ্রণটি চুলের গোড়ায় ভালোভাবে লাগিয়ে নিন। অনেকের মাথার চামড়া পাতলা হয় সেক্ষেত্রে সামান্য জ্বালা পোড়া  হতে পারে কিন্তু ভয় পাওয়ার কিছু নেই। ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন এরপর শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন।

iii. আলুর রসের সাথে ১ চা-চামচ মধু এবং ১ টি ডিমের কুসুম ভালোভাবে মিক্স করে নিন। তৈরি করা মিশ্রন টি চুলের গোড়ায় ভালো ভাবে লাগিয়ে নিন। এরপর অন্তত ৪০ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর নরমাল পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন।


৭. হেয়ারপ্যাক তৈরী ও ব্যবহারঃ চুল ঘন করার উপায়

  • হেয়ারপ্যাক তৈরি করতে যা যা লাগবে- মেথি, ডিম, টকদই, ত্রিফলা
  • তৈরী ও ব্যবহার করার নিয়ম- মেথি এবং ত্রিফলা ব্লেন্ড করে পেস্ট তৈরি করুন, তৈরি করা পেস্টটি  টকদই এবং ডিমের সাথে মিশিয়ে নিন। যদি ডিম ব্যবহারে সমস্যা হয়ে থাকে তাহলে আপনি পেঁয়াজের রস, আমলকীর রস মিশিয়ে ব্যবহার করতে পারবেন। 
  • তৈরি করা মিশ্রণটি চুলের মধ্যে খুব ভালো করে লাগিয়ে নিন। খেয়াল রাখবেন যেন মিশ্রনটি চুলের সব স্থানে পৌঁছায়।
  • ৩০-৪০ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর শ্যাম্পু এবং নরমাল পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। 
  • নরমাল ভাবে চুল শুকান। হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করবেন না চুল শুকাতে।
  • প্রাকৃতিক কন্ডিশনার হিসেবে অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করতে পারেন, অ্যালোভেরা আপনার চুলের চকচকে ভাব বজায় রাখবে।


উপরে বর্ননাকৃত বিশেষ হেয়ারপ্যাকটি অতিরিক্ত চুল পড়া বন্ধ করার উপায় হিসেবে খুবই সুপরিচিত এবং একটি কার্যকরী উপায়।


চুল ঘন করার উপায়-চুল পড়ার বিভিন্ন কারণের মধ্যে প্রধান কারণ অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস। স্বাস্থ্যকর ডায়েট চুল পড়া অনেকটাই কমাতে পারে। ভিটামিন ও মিনারেলের অভাবেও চুল পড়ে। তাই স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ার পাশাপাশি চুলে উপরোক্ত প্রাকৃতিক উপাদানগুলো নিয়মিত ব্যবহার করুন। নিয়মিত ব্যবহারে, আপনার পাতলা চুল আগের চেয়ে ঘন এবং আরও সুন্দর হবে।

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

স্বাস্থ্য টিপস বিডি কি?