স্বাস্থ্য টিপস বিডি https://www.shastotipsbd.com/2022/03/payer-betah-kivabe-komano-jai.html

পা ব্যাথা কমানোর উপায়  | কিভাবে পায়ের ব্যাথা কমানো যায়



পা ব্যাথা কমানোর উপায় —পায়ে ব্যথা বেশ প্রচলিত একটি সমস্যা। প্রায় সব বয়সেই এ সমস্যা  হয়ে থাকে। কখনো কখনো ব্যথা থেকে পা নাড়ানোই কষ্টকর হয়ে যায়। পেশিতে টান , পেশিতে অবসন্ন ভাব, পুষ্টির ঘাটতি, পানিশূন্যতা, টানা দাঁড়িয়ে থাকা ইত্যাদি কারণে এ সমস্যা টি হতে পারে। দুর্বল হাড়, শরীরে ভিটামিন-ডি এর অভাব, ইউরিক অ্যাসিড বেড়ে যাওয়া এবং বাতের ব্যথার কারণেও পায়ে ব্যথা হয়।

পায়ে ব্যথা কমানোর কিছু ঘরোয়া উপায় জানিয়েছে স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট স্বাস্থ্যটিপসবিডি.কম


পা ব্যাথা কমানোর উপায়  | কিভাবে পায়ের ব্যাথা কমানো যায়, payer betha komanor upay, kivabe payer betah komano jai, কিভাবে পায়ের ব্যাথা কমাবো



পায়ের ব্যথা কমানোর উপায় সমূহ 

অনেক সময় অনেক হাঁটার কারণে, অনেক সময় এক জায়গায় দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকার কারণে পায়ে ব্যথা হয়। অনেক সময় নিশ্চয়ই দেখেছেন শিশু বা বৃদ্ধরা পায়ে ব্যথায় কষ্ট পান। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, পায়ে ব্যথার সময় যেকোনো স্বাস্থ্য সমস্যাকেও নির্দেশ করে।

দুর্বল হাড়, শরীরে ভিটামিন-ডি-এর অভাব, ইউরিক অ্যাসিড বেড়ে যাওয়া এবং বাতের ব্যথার কারণেও পায়ে ব্যথা হয়। অনেক সময় পায়ের ব্যথা অসহ্য হয়ে ওঠে, বিশেষজ্ঞরা কিছু ঘরোয়া প্রতিকারের পরামর্শ দেন, যা কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই এই সমস্যা দূর করে।


১. ঠাণ্ডা স্যাঁক

পায়ের ব্যথা কমাতে ঠাণ্ডা স্যাঁক দেওয়া যেতে পারে। এটি আক্রান্ত স্থানের প্রদাহ এবং ফোলা ভাব কমাতে সাহায্য করে।


১. একটি ব্যাগের মধ্যে কয়েকটি বরফের টুকরো নিন। এবার এটিকে তোয়ালে বা কাপড় দিয়ে মুড়ে নিন।

২. আক্রান্ত স্থানে ১০-১৫ মিনিট এটি দিয়ে স্যাঁক দিতে থাকুন।

৩. দিনে কয়েকবার নিয়মিত এ পদ্ধতি অনুসরণ করুন।

৪. তবে বরফ সরাসরি ত্বকে লাগাতে যাবেন না।



২. তেল মালিশ

দাদি-নানীর প্রেসক্রিপশনে পায়ের ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে ম্যাসাজকে শীর্ষে রাখা হয়েছে। তেল মালিশ করলে শরীরের প্রতিটি অঙ্গে অক্সিজেন সঠিকভাবে পৌঁছায় এবং রক্ত ​​চলাচল ভালো হয়। এ কারণে পেশিতে টান বা দুর্বলতা থাকলে তা চলে যাবে। মানুষ চাইলে লাল তেল, সরিষার তেল বা সেলারি ও রসুন রান্না করে তেল লাগাতে পারে। এছাড়া নারকেল তেল দিয়ে ম্যাসাজ করলেও উপকার পাওয়া যাবে।


৩. হলুদের পেস্ট

হলুদ অনেক ঔষধি উপাদানে সমৃদ্ধ, যার মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হল কারকিউমিন। এটি প্রদাহ বিরোধী এবং ব্যথা উপশমকারী বৈশিষ্ট্যগুলির জন্য পরিচিত। আক্রান্ত স্থানে হলুদের পেস্ট লাগালে মানুষ উপকৃত হবে। তিলের তেলে দুই চামচ হলুদ মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্ট পায়ে আধা ঘণ্টা লাগিয়ে রাখলে উপকার পাওয়া যাবে।


৪. শিলা লবণ দিয়ে ভিজিয়ে রাখুন

পায়ের ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে শিলা লবণ উপকারী। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, এই লবণ ব্যবহারে স্নায়ু সংকেত নিয়ন্ত্রণ করে পেশী শিথিল হয় এবং পায়ের ব্যথা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। এক বালতি হালকা গরম পানিতে এক থেকে দুই চা চামচ রক সল্ট রাখুন। এবার এতে কিছুক্ষণ পা ডুবিয়ে রাখুন।


অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

স্বাস্থ্য টিপস বিডি কি?