স্বাস্থ্য টিপস বিডি https://www.shastotipsbd.com/2022/03/fit%20thakar-upay.html

৩০ বয়সের উর্দ্ধে সুস্থ ও ফিট থাকার সহজ উপায় | স্বাস্থ্য টিপস


ফিট থাকার উপায়- ফিট থাকার জন্য আপনার একটি নির্দিষ্ট বয়সের প্রয়োজন নেই,তবে ৩০-এর ঘরে  বা ৩০ ঊর্ধ্ব বয়স হওয়ার পর ওজন আর আগের মতো কমানো যায় না। শরীর ধীরে ধীরে ভারী হতে থাকে। ২০ বছর পর, আমাদের মেটাবলিজম রেট প্রতি ১০ বছরে ১-২% হ্রাস পায়, ফলে হজমশক্তি হ্রাস পায়। শরীরের চর্বির পরিমাণও বেড়ে যায়। এ সময় শরীর ফিট রাখতে খাওয়ার পাশাপাশি ব্যায়ামও জরুরি। আপনি যদি নিয়মগুলি মেনে চলেন, তাহলে আপনি ৪০ বছর বয়সেও ফিট থাকতে পারবেন। বেশিরভাগ মানুষ ব্যায়ামকে অতিরিক্ত ঝামেলা মনে করেন। কিন্তু ব্যায়াম অনুশীলনের বিষয়। গোসল, খাওয়া, ত্বকের যত্ন যেমন সহজ। আর দশটা কাজের মতো  ফিটনেস রুটিনকে ও জীবনের ভাবলে তখন  আর আলাদা করে  ব্যায়াম করছেন বলে মনেই  হবে না।

৩০ বয়সের উর্দ্ধে  সুস্থ ও ফিট থাকার সহজ উপায় | স্বাস্থ্য টিপস | ফিট থাকার সহজ উপায়


ছোট পরিবর্তন দিয়ে শুরু করুন। সারাক্ষণ বসে না থেকে একটু-আধটু হাঁটলে ক্ষতি কী?  অফিসে দীর্ঘক্ষণ বসে থাকলে শরীরের ওজন আরো বেড়ে যায়, সময় পেলে কাজের ফাঁকে একটু হেঁটে আসুন। আমরা অনেক সময় ২ তালায় ও উঠতে লিফট ব্যবহার করি, এটি করা যাবে না। সবসময় চেষ্টা করবেন সিড়ি দিয়ে উঠার জন্য। এই অব্যাশ গুলো পরিবর্তন করতে থাকুন এইগুলো আপনার সুস্থ ও ফিট থাকার প্রথম ধাপ।



৩০ বয়সের উর্দ্ধে হলে শরীরের মেদ নিয়ন্ত্রণ কিভাবে করবেন?


এখানে কিছু টিপস দেওয়া হোলো, যেগুলো আপনাকে ফিট থাকতে সাহায্য করবে।


১) যাদের মূল লক্ষ্য বাড়তি ওজন কমানো- তাদের হাঁটা ছাড়া কোন উপায় নেই। প্রতিদিন কমপক্ষে ৪০ মিনিট হাঁটা উচিত। এতে আপনার ক্যালোরি দ্রুত বার্ন করবে। তবে মনে রাখবেন, হাঁটার পর এসে অতিরিক্ত খাবার খেলে কোনো লাভ নেই।


২) যারা একটিভ থাকতে বা খেলাধুলা করতে বেশি পছন্দ করেন তাদের জন্য সাইকেল চালানো একটি দুর্দান্ত ব্যায়াম। মনে রাখবেন,  প্রতিদিন ১৫ মিনিট সাইকেল চালানো শরীরের জন্য একটি খুব ভাল ব্যায়াম। সুযোগ থাকলে সাঁতারও কাটতে পারেন।



৩) আপনি ছুটির দিনে জিমে যেতে পারেন এবং ট্রেডমিল, রোইং মেশিন ব্যবহার করে দেখতে পারেন। যেহেতু প্রত্যেকটি খুব হাই ইনটেনসিটি ব্যায়াম, তাই ক্যালরি তাড়াতাড়ি বার্ন হয়। অবশ্যই জিম ট্রেইনারদের সহযোগিতা নিন।


৪) রেসিসটেন্স ব্যায়ামও একটি ভাল উপায় শরীল সুস্থ এবং ফিট রাখতে। আপনার পা ফাঁকা করে সোজা হয়ে দাঁড়িয়ে সামনে একটা চেয়ার রাখুন। চেয়ার ধরে আস্তে আস্তে বসার চেষ্টা করুন, কিন্তু পুরাপুরি না বসে অর্ধেক বসে আবার উঠে দাঁড়ান। খেয়াল রাখবেন বসার সময় যেন দুই পায়ের মধ্যে যথেষ্ট ফাঁকা থাকে।


এছাড়া যোগব্যায়াম, মেডিটেশন এবং অ্যারোবিকসের মাধ্যমে আপনি আপনার শরীরের ফিটনেস বজায় রাখতে পারেন।



অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

স্বাস্থ্য টিপস বিডি কি?